তারাবির নামাজ কত রাকাত | তারাবির নামাজের নিয়ম

মাহে রমজানে রাত্রিকালে এশার নামাজের চার রাকাত ফরজ ও দুই রাকাত সুন্নতের পর এবং বিতর নামাজের আগে দুই রাকাত করে ১০ সালামে যে ২০ রাকাত নামাজ আদায় করা হয়, একে ‘তারাবি নামাজ’ বলা হয়।

তারাবির নামাজের নিয়ম

তারাবির নামাজ কত রাকাত এ নিয়ে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে নিজেরা আলোচনা থেকে জানতে পারবেন তারাবির নামাজ 8 রাকাত নাকি 20 রাকাত এবং তারাবির নামাজ সুন্নত নাকি ওয়াজিব নাকি নফল সম্পর্কে একটি স্পষ্ট ধারণা পেয়ে যাবেন।

রোজা রাখার নিয়ত ও ইফতারের দোয়া আরবি এবং বাংলা উচ্চারণ দেখুন

রমজানের সময় সূচি ২০২২ | রমজান ক্যালেন্ডার ২০২২


তারাবির নামাজ কত রাকাত | তারাবির নামাজের নিয়ম
তারাবির নামাজ কত রাকাত | তারাবির নামাজের নিয়ম

 রোজার সেহেরি ও ইফতারের সময়সূচি 2022

আজকের ইফতারের সময় ২০২২ | প্রতি দিনের সেহেরি ও ইফতেরর সময়সূচী 2022

রাসুলুল্লাহ (সা.) নিজে তারাবি নামাজ পড়েছেন এবং সাহাবায়ে কিরামকে পড়ার জন্য আদেশ দিয়েছেন।

নবী করিম (সা.) বেশির ভাগ সময় রাতের শেষাংশে তারাবি আদায় করতেন এবং প্রথমাংশে বিশ্রাম নিতেন। তিনি কখনো আট রাকাত, কখনো ১৬ রাকাত, আবার কখনো ২০ রাকাত তারাবি নামাজ আদায় করেছেন। কিন্তু বিশেষ কারণবশত নিয়মিত ২০ রাকাত পড়তেন না।

তারাবির নামাজ সুন্নত নাকি নফল

হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম তারাবি নামাজ পড়েছেন এবং সাহাবাদের তারাবির নামাজ পড়ার জন্য আদেশ করেছেন হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম যা করেছেন এবং সাহাবীদেরকে যা করতে আদেশ করেছেন তা সুন্নত।

তারাবি নামাজ সুন্নতে মুয়াক্কাদা

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কোনো কাজ নিয়মিত করলে তা উম্মতের জন্য ওয়াজিব তথা অত্যাবশ্যকীয় হয়ে যায়। এ করুণা দৃষ্টির কারণে তিনি তাঁর আমলে প্রতিনিয়ত ২০ রাকাত পূর্ণ তারাবি জামাত হতে দেননি।

সেহেরি ও ইফতেররে সময়সূচী ২০২২ রোজার মাসের ক্যালেন্ডার

এজন্য তিনি ভিন্ন ভিন্ন সময়ে তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে আদায় করেছেন। যার দরুন সালাতুত তারাবিহ সুন্নত, ওয়াজিব নয়; তবে সুন্নতে মুয়াক্কাদা বা জরুরি সুন্নত।


অতএব  তারাবী নামায নারী-পুরুষ সকলের জন্য সুন্নতে মুয়াক্কাদা। তবে পুরুষ মসজিদে জামাতের সাথে আর মহিলাগণ ঘরে পড়বে।

তারাবি নামাজের নিয়ত | তারাবির নামাজের নিয়ম ও দোয়া সমূহ

অনেক অপেক্ষার পর মুসলিম জাহানের সবচেয়ে রহমত এবং গুরুত্বপূর্ণ মাসে রমজান চলে এসেছে এই রমজান মাসকে কেন্দ্র করে আমাদের অনেক আমল ও কাজ রয়েছে আজকে আমরা জানবো তারাবির নামাজের নিয়ত সম্পর্কে

তারাবির নামাজের আরবি নিয়ত

তারাবি নামাজের নিয়ত: আরবি এবং বাংলা উভয়ভাবে নিয়ত করা যাবে। আরবি নিয়ত হচ্ছে, নাওয়াাইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তাআলা, রকাআতাই সালাতিত তারাবিহ, সুন্নাতু রাসুলিল্লাহি তাআলা, মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি, আল্লাহু আকবার।

তারাবির নামাজের বাংলা নিয়ত

বাংলায় নিয়ত হচ্ছে, আমি কেবলামুখি হয়ে দুই রাকাআত তারাবির সুন্নতে মুয়াাক্কাদাহ নামাজের নিয়ত করছি। আল্লাহু আকবার। (জামাআত হলে যোগ করতে হবে এ ইমামের পেছনে পড়ছি)।

তারাবির নামাজের নিয়ম

রমজান মাসের রজনীতে অর্থাৎ এশার নামাজের চার রাকাত ফরজ নামাজ এবং দুই রাকাত সুন্নত নামাজ আদায়ের পর এবং ৩ রাকাত বিতরের নামাজের আগে দুই রাকাত - দুই রাকাত করে যে সালাত আদায় করা হয় তাকে বলা হয় সালাতু-তারাবি বা তারাবির নামাজ।

তারাবির নামাজ কত রাকাত

তারাবির নামাজ কত রাকাত এবং তারাবির নামাজ সর্বনিম্ন কত রাকাত পড়া যাবে তারাবির নামাজ কত রাকাত সহি হাদিস আলোকে এ নিয়ে আমাদের জানার আগ্রহ অনেক

তারাবির নামাজ কত রাকাত সহীহ হাদিস

এখন কথা হচ্ছে তারাবির নামাজ কত রাকাত পড়তে হবে। তারাবির নামাজ কত রাকাত এ নিয়ে অনেকের মধ্যেই অনেক রকম মতানৈক্য রয়েছে। তবে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম তারাবির নামাজ কখনো  ৮ রাকাত কখনো ১৬ রাকাত এবং ২০ রাকাত করেও আদায় করতেন।

তারাবির নামাজ সর্বনিম্ন কত রাকাত পড়া যায়

মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যেহেতু তারাবির নামাজ কে ভিন্ন ভিন্ন রাকাতে আদায় করেছেন। সেহেতু তার উম্মত এবং অনুসারী হিসেবে ভিন্ন ভিন্ন রাকাতে তারাবির নামাজ আদায় করা যাবে।

যদি বলা হয় তারাবির নামাজ সর্বনিম্ন কত রাকাত পড়া যায় 

বাংলাদেশে রোজা কবে থেকে শুরু ২০২২ । রমজান ২০২২ কত তারিখ কি বার?


মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম সর্বনিম্ন ৮ রাকাত তারাবির নামাজ পড়েছে বলে হাদীসে বর্ণিত আছে অর্থাৎ তিনি বিতির নামায সহকারে ১১ রাকাত নামাজ আদায় করতেন সেই হিসেবে তারাবির নামাজ সর্বনিম্ন ৮ রাকাত পড়া যেতে পারে।

তবে তারাবির নামাজ আট (৮) রাকাতই পড়তে হবে এবং এটিই নিয়ম এরকমটি ধরে নেওয়া ভুল হবে, কেননা মহানবী নিজেই তারাবির নামাজ কখনো ৮ রাকাত কখনো ১৬ রাকাত এবং ২০ রাকাত আদায় করেছেন। 

তারাবিহ নামাজের দোয়া | তারাবির নামাজের নিয়ম ও দোয়া সমূহ 

আপনারা জানেন যে তারাবির নামাজ দুই রাকাত দুই রাকাত করে আদায় করতে হয় এবং প্রতি চার রাকাতের পড় পড় কিছু সময় বসে দোয়া পাঠ করতে হয় তারাবি নামাজের দোয়া সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো--

তারাবির নামাজের চার রাকাত পরপর দোয়া

তারাবি নামাজের চার রাকাত পরপর যে দোয়া পড়া হয় তা নিচে বাংলা অর্থ সকারে দেয়া হলোঃ-


سبحان ذى الملك والملكوت سبحان ذى العزة والعظمة والهيبة والقدرة والكبرياء والجبروت . سبحان الملك الحى الذى لاينام ولا يموت ابدا ابدا سبوح قدوس ربنا ورب الملئكة والروح.


তারাবি নামাজের চার রাকাত পরপর যে দোয়া পড়া হয় তার বাংলা উচ্চারণ-

উচ্চারণ: সুব্হানাযিল মুলকি ওয়াল মালাকুতি, সুব্হানাযিল ইয্যাতি, ওয়াল আয্মাতি, ওয়াল হাইবাতি, ওয়াল কুদরাতি, ওয়াল কিবরিয়াই, ওয়াল যাবারুত। সুব্হানাল মালিকিল হাইয়্যিল্লাজি লা-ইয়াানামু ওয়ালা ইয়ামুতু আবাদান আবাদা। সুব্বুহুন কুদ্দুছুন রাব্বুনা ওয়া রাব্বুল মালাইকাতি ওয়ার রূহ।

তারাবির নামাজের দোয়া কখন পড়তে হয়

তারাবি নামাজের চার রাকাত পরপর যে দোয়া পড়া হয় তা নিচে বাংলা অর্থঃ-

সুবহানাযিল মুলকি ওয়াল মালাকুতি বাংলা অর্থ

অর্থ : আল্লাহ পবিত্রময় সাম্রাজ্য ও মহত্ত্বের মালিক। তিনি পবিত্রময় সম্মান মহত্ত্ব ও প্রতিপত্তিশালী সত্তা। ক্ষমতাবান, গৌরবময় ও প্রতাপশালী তিনি পবিত্রময় ও রাজাধিরাজ যিনি চিরঞ্জীব, কখনো ঘুমায় না এবং চির মৃত্যুহীন সত্তা। তিনি পবিত্রময় ও বরকতময় আমাদের প্রতিপালক, ফেরেশতাকুল এবং জিবরাইলের (আ.) প্রতিপালক।

তারাবি নামাজের মুনাজাত

সকল আমল এবং ইবাদতের মূল হচ্ছে মোনাজাত বা আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা তারাবির নামাজের মোনাজাত কোনটি তারাবি নামাজ শেষে মোনাজাতে কি পড়তে হয় সে নিয়ে আলোচনা করব-

তারাবির নামাজের মোনাজাত এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে প্রসিদ্ধ মোনাজাত ও দোয়া নিচে দেওয়া হল


اَللَهُمَّ اِنَّا نَسْئَالُكَ الْجَنَّةَ وَ نَعُوْذُبِكَ مِنَ النَّارِ يَا خَالِقَ الْجَنَّةَ وَالنَّارِ- بِرَحْمَتِكَ يَاعَزِيْزُ يَا غَفَّارُ يَا كَرِيْمُ يَا سَتَّارُ يَا رَحِيْمُ يَاجَبَّارُ يَاخَالِقُ يَابَارُّ - اَللَّهُمَّ اَجِرْنَا مِنَ النَّارِ يَا مُجِيْرُ يَا مُجِيْرُ يَا مُجِيْرُ- بِرَحْمَتِكَ يَا اَرْحَمَ الرَّحِمِيْنَ

তারাবির নামাজের মুনাজাত বাংলা উচ্চারনঃ-


উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্না নাসআলুকাল জান্নাতা ওয়া নাউজুবিকা মিনাননার। ইয়া খালিক্বাল জান্নাতি ওয়ান নার। বিরাহমাতিকা ইয়া আঝিঝু ইয়া গাফফার, ইয়া কারিমু ইয়া সাত্তার, ইয়া রাহিমু ইয়া ঝাব্বার, ইয়া খালিকু ইয়া বার্রু। আল্লাহুম্মা আঝিরনা মিনান নার। ইয়া মুঝিরু, ইয়া মুঝিরু, ইয়া মুঝির। বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রাহিমিন।

  • তারাবির নামাজ ২০ রাকাতের দলিল
  • তারাবির নামাজ ৮ রাকাতের দলিল
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

প্রয়োজনীয় পোস্ট